ঘাটাইল আ’লীগের সম্মেলন: তৃণমূলে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আব্দুর রহিম

ঘাটাইল আ’লীগের সম্মেলন তৃণমূলে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আব্দুর রহিম



 : টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে লড়াই করছেন জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা আব্দুর রহিম মিয়া। ক্লিন ইমেজের এই নেতাকে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দেখতে চান তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। তার পক্ষে একাট্টা হয়ে কাজ করছেন তৃণমূলের অনেকেই। এমনটাই দাবি- সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদ চাওয়া আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রহিম মিয়ার। 

 

জানা যায়, দীর্ঘ ২০ বছর পর আগামী ৬ জুন ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনকে ঘিরে ইতোমধ্যেই নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। উপজেলার রাজনীতিতে ব্যাপক প্রাণচাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। শহরে পোস্টারিং, ফেস্টুন ও তোরণ নির্মাণ করা হচ্ছে। সব মিলিয়ে দলীয় নবীণ-প্রবীণ নেতা-কর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার সৃষ্টি হয়েছে। 


সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে নানান মাধ্যমে জানান দিচ্ছেন একাধিক নেতা। জেলার গুরুত্বপূর্ণ এই উপজেলায় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কে হচ্ছেন তা নিয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে দেখা দিয়েছে বিশেষ আগ্রহ। তবে সাধারণ সম্পাদক পদে জনমুখে ব্যাপক আলোচনায় রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়ক ও সংগ্রামপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম মিয়া। তার পক্ষে বিভিন্ন নেতাকর্মীরা পোস্টারিং, ফেস্টুন ও তোরণ নির্মাণ করছেন। উপজেলার হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লায়, চায়ের দোকানসহ  সব জায়গায় আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন এই ত্যাগী নেতা। 


রাজনৈতিক জীবনে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন ইউনিটে নেতৃত্ব দিয়েছেন চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম। মেধাবী এই নেতা চাপড়ী গণ উচ্চ বিদ্যালয় স্কুল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দাঁয়িত্ব পালন করেছেন ১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৮১ সাল পর্যন্ত, বৃহত্তর সন্ধানপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতির দাঁয়িত্বে ছিলেন ১৯৮১ থেকে ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত, সন্ধানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক ছিলেন ১৯৮৫ সালে, এরপর সন্ধানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দাঁয়িত্ব পালন করেন ১৯৮৬ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ছিলেন ২০০২ তেকে ২০১২ পর্যন্ত। বর্তমানে তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম-আহবায়কের দাঁয়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি দুইবার চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজ এবং মাদরাসায় ব্যবস্থাপনা পরিষদে শীর্ষ পদে দাঁয়িত্ব পালন করছেন। 


নেতাকর্মীরা জানান, ত্যাগী ও দুঃসময়ের নেতা হিসেবে সুপরিচিত রয়েছে আব্দুর রহিম মিয়ার। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে পরিবারের ওপর একাধিকবার হামলা হয়েছে। ডুয়েট ছাত্রলীগের নেতৃত্ব দেয়ার সময় তার এক পা ও এক হাত ভেঙে দিয়ে মৃত্যু ভেবে ডেনে ফেলে দিয়েছিল বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা। কঠিন সময়েও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসা¤প্রদায়িক ভাবধারার আদর্শের মানুষ হিসেবে অটুক ছিলেন তিনি। জেল-জুলুমকে নিত্যসঙ্গী করে রাজপথে নিজেকে সোচ্চার রেখেছেন। তিনি পরিচ্ছন্ন, বিশ্বাসী, পরিক্ষিত, নিবেদিত ও পরিশ্রমী নেতা হিসেবে সুপরিচিতি রয়েছে তার। এই নেতাকে ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দিলে ঘাটাইলের আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থান আরও শক্তিশালী ও সুসংগঠিত হবে বলে মনে করছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।


ত্যাগী নেতা আব্দুর রহিম মিয়া বলেন, ‘তৃণমূলের নেতাকর্মীরা আমার পক্ষে রয়েছেন। তারা চাচ্ছেন- আমাকে যেন সাধারণ সম্পাদকের দাঁয়িত্ব দেয়া হয়। আমাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হলে আমার সর্বোচ্চটা দিয়ে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে কাজ করবো। বিগত সময়ে দলের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদের দাঁয়িত্ব সফলতার সঙ্গে পালন করেছি। তৃণমূল থেকে দলকে অত্যন্ত সুসংগঠিতভাবে পরিচালনা করতে সক্ষম হয়েছি।’


তিনি আরও বলেন, ‘তৃণমূল নেতাকর্মীই হচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রাণ। তাই তৃণমূলের দুঃখ-দুর্দশার দূর করে দলকে তৃণমূল থেকেই শক্তিশালী করবো ইনশাআল্লাহ। স্বাধীনতাবিরোধী বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্য প্রতিহত করতে অগ্রভাগে থেকেছি এবং আগামীতেও থাকবো।’



শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।