কুড়িগ্রামে মা টেক্সটাইলের তুলার মিল আগুনে পুড়ে ভষ্মিভুত

 : কুড়িগ্রামের বিসিক শিল্প নগরীতে মা গার্মেন্টস এর একটি তুলার মিল ও দুটি গোডাউন আগুনে পুড়ে ভষ্মিভুত হয়েছে। 

কুড়িগ্রামে মা টেক্সটাইলের তুলার মিল আগুনে পুড়ে ভষ্মিভুত



 রোবাবার সকাল ১০টার দিকে মিলে আগুন দেখে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে কুড়িগ্রাম, উলিপুর, রাজারহাট ও লালমনিরহাটের ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ২ ঘন্টার চেষ্টার আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। তবে কি কারনে আগুনের সুত্রপাতা ও কত টাকার ক্ষতি হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি।


মিলের শ্রমিক ও স্থানীয়রা জানায়, তুলার মিলের মেশিন থেকে আগুনের সুত্রপাত হলে তা নেভানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। 

মিলের মালিক মহসীন আলী ওমরা হজ্জ পালন করতে দেশের বাইরে রয়েছেন বলে জানান স্থানীয়রা।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদুল হাসান, বিসিক শিল্প নগরীর অতিরিক্ত পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম, রংপুর বিভাগীয় ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক মো: জসীম উদ্দিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আগুন নিয়ন্ত্রনে আসায় ক্ষতির পরিমান নিরুপন করে ব্যবস্থা নেয়ার আশ^াস দেন তারা।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাশেদুল হাসান জানান, মিলের মালিক ওমরা হজ্জ পালন করতে দেশের বাইরে রয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নিরুপন করে উর্ধতন কর্মকর্তাদের জানানো হবে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের রংপুর বিভাগীয় উপ-পরিচালক মো: জসিম উদ্দিন জানান, খবর পাওয়ার পরপর ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট এসে কাজ শুরু করে আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছে। কেন না বিসিক শিল্প নগরীর এই তুলার মিলের পাশে জুটমিলসহ অন্যান্য মিল ও রয়েছে। অন্যান্য মিলের যাতে সমস্যা না হয় সেজন্য ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা সজাগ ছিল। তদন্তের পর রিপোর্ট দেয়া হবে বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

কুড়িগ্রাম বিসিক শিল্প নগরীর ডিপুটি জেনারেল ম্যানেজার জাহাঙ্গীর আলম জানান, আগুন লাগার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়া হয়। পরে ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। ক্ষতির পরিমান নিরুপন করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।



শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।