করোনার দ্বিতীয় ডোজ টিকা পেলেন ‘মৃত নারী’!

করোনার দ্বিতীয় ডোজ টিকা পেলেন ‘মৃত নারী’!



সেবা ডেস্ক: প্রতিবেশ দেশ ভারতে গত ছয় মাস আগে মারা যাওয়া এক নারী পেয়েছেন প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ডোজ টিকা। 

সম্প্রতি ভারতের হরিয়ানা রাজ্যে ঘটেছে বিতর্কিত এই ঘটনা।

জানা গেছে, টিকার প্রথম ডোজ নেয়ার পর গত এপ্রিল মাসে মারা যান ওই নারী। এদিকে মৃত নারীর ‘টিকা পাওয়ার’ ঘটনায় ভারতজুড়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। 

একইসঙ্গে এই ঘটনায় অস্বস্তিতে পড়েছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, চলতি বছরের ১৩ এপ্রিল করোনা টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছিলেন ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের বাহাদুরগডড় এলাকার সুমিত্রা দেবী নামে এক নারী। 

তবে টিকা নেয়ার পরও গত ৪ মে মৃত্যু হয় তার। কিন্তু গত ২৭ আগস্ট সুমিত্রার দ্বিতীয় ডোজ টিকা নেওয়ার মেসেজ পেয়েছেন পরিবারের সদস্যরা। 

মৃত্যুর পরে কী ভাবে ওই নারী টিকা নিয়েছেন, তা নিয়ে প্রশ্নের মুখে পড়েছে বিজেপি শাসিত হরিয়ানা রাজ্য সরকার।

মৃত সুমিত্রা দেবীর পরিবারের সদস্যরাই সম্প্রতি বিষয়টি সামনে এনেছেন। এর আগে মধ্যপ্রদেশেও একই ধরনের ঘটনা সামনে এসেছিল। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্মদিনে তার টিকা নেয়ার বিষয়টি নথিভুক্ত হয়।

বিরোধীদের অভিযোগ, মোদির জন্মদিনে রেকর্ড সংখ্যক টিকাদান দেখাতেই মধ্যপ্রদেশের ওই মৃত ব্যক্তিকে টিকা দেওয়া হয়েছিল। 

বিহারে আবার টিকা নেয়ার তিন-চার দিন পরে ঠিক মোদির জন্মদিনেই তা সরকারি ভাবে নথিভুক্ত করা হয়। যেন টিকাদানের সংখ্যা বাড়িয়ে দেখানো যায়।

তবে বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রদেশ ও বিহারের দুই ঘটনার অভিযোগই অস্বীকার করেছেন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ। 

তার দাবি, বিহারের অভিযোগ ঠিক নয়। আর মধ্যপ্রদেশের রাজেশের বক্তব্য ওই ব্যক্তি টিকা নিতে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন, তখনই তার মৃত্যু হয়। 

সম্ভবত কোনো কারণে ভুলবশত নথিভুক্ত করা হয়েছে ওই ব্যক্তির নাম। 

এই দু’রাজ্যেও ক্ষমতাসীন বিজেপি বা বিজেপির জোট। ফলে বিরোধীদের সমালোচনার লক্ষ্য বিজেপিই।

এদিকে ভারতে সংক্রমণ কমলেও মুম্বাইয়ের কিং অ্যাডওয়ার্ড মেমোরিয়াল হাসপাতালের অন্তত ৩০ জন শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। 

ওই ৩০ জনের মধ্যে ২৮ জনের আবার টিকার দু’টি ডোজই নেয়া ছিল। সংক্রমিতদের মধ্যে ২৩ জন এমবিবিএসের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। বাকি সাত জন প্রথম বর্ষের।

এরইমধ্যে এক জনকে সেভেন হিলস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা আইসোলেশনে রয়েছেন। এছাড়া চলতি সপ্তাহে বেঙ্গালুরুর এক আবাসিক স্কুলে ৬০ জন শিক্ষার্থী করোনায় সংক্রমিত হন। 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।