ঘর পেয়ে অশীতিপর আমিরণ জানান- আল্লায় সেখের বেটিকে ভালো রাখুন

ঘর পেয়ে অশীতিপর আমিরণ জানান- আল্লায় সেখের বেটিকে ভালো রাখুন



কাজিপুর প্রতিনিধি: ঝুপড়িবাসী অশীতিপর আমিরণের এখন পাকা ঘরে থাকেন। ঘরের সাথে পেয়েছেন আরও কিছু সুবিধাও। 

বুধবার ( ১৭ নভেম্বর) দুপুরে সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার কুনকুনিয়ায় আমিরনের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে নিজের মতো করে জিনিসপত্র সব সাজিয়েছেন তিনি। 

এই প্রতিবেদককে দেখে তিনি ঘর থেকে বেরিয়ে এসে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্যে শুভ কামনা জানান। তিনি বলেন আল্লায় সেখের বেটিকে ভালো রাখুন। সেইসাথে তিনি ধন্যবাদ জানান কাজিপুর উপজেলা প্রশাসনকে। 

গত মাসে ঝুপড়বাসী আমিরনের বিষয়টি সাংবাদিকদের মাধ্যমে জানতে পারেন কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী। 

তিনি সরেজমিনে দেখে তাৎক্ষণিক ঘর দেবার প্রতিশ্রæতি দেন। দেড় মাসের মধ্যে আমিরনের জন্যে তিনকক্ষ বিশিষ্ট একটি সেমিপাকা ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়। 

আমিরন জানান, শুক্কুরবার(শুক্রবার) ঘরে মিলাদ দিছি। এহন ঝড় বিষটি আইসলে পারে চিন্তা হরা নাইগবো না। স্বপ্নেও ভাবি নাই এমন একটো ঘর পামু। আল্লায় সেখের বেটিরভালো হরুক(করুন) 

মাইজবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত হোসেন জানান, ইউএনও স্যার জানামাত্র দ্রæত সময়ে আমিরনকে ঘর করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। তাকে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

কাজিপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান সিদ্দিকী জানান, বিষয়টি সাংবাদিকদের নিকট জানতে পেরে জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পের আওতায় তার(আমিরনের ) জন্যে ঘরটি নির্মান করে দেয়া হয়েছে। 

পিআইও একেএম শাহা আলম মোল্লার তত্বাবধানে স্বল্প সময়ে ঘরটি নির্মান করে দেয়া হয়েছে।  মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুচিন্তা প্রসূত এই প্রকল্পের মাধ্যমে কাজিপুরে অনেক ঘরহীনকেই আমরা ঠিকানা করে দিয়েছি।

 


শেয়ার করুন

-সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

0comments

মন্তব্য করুন

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।