সাংবাদিক নাদিম হত্যার প্রধান আসামী গ্রেফতার হলেন যেভাবে?

S M Ashraful Azom
0

: জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার উপজেলা প্রেস ক্লাবের সদস্য সাংবাদিক গোলাম রব্বানি নাদিম হত্যায় সাধুরপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম ওরফে বাবুকে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সাংবাদিক নাদিম হত্যার প্রধান আসামী গ্রেফতার হলেন যেভাবে



গতকাল শনিবার (১৭ জুন) সকালে দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের চর তিস্তাপাড়া গ্রাম থেকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নাদিম হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী মাহমুদুল আলমকে গ্রেপ্তার করে। ঢাকায় আনার পরে তাকে জামালপুরে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখান থেকে তাকে বকশীগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হবে বলে জানা গেছে।

সাংবাদিক নাদিম হত্যা: আরও পড়ুন >>

মাহমুদুল আলম সাধুরপাড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তাকে শুক্রবার (১৬ জুন) রাতে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বকশীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ। তার নির্দেশেই সাংবাদিক গোলাম রব্বানিকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ স্বজন ও সহকর্মীদের। পুলিশও প্রাথমিক তদন্তে এ অভিযোগের সত্যতা পেয়েছে।


সাংবাদিক গোলাম রব্বানির স্ত্রী মনিরা বেগম বাদী হয়ে ইউপির চেয়ারম্যান মাহমুদুলকে প্রধান আসামি করে ২২ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ২৫ জনকে আসামি করে বকশীগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।


জানা গেছে, পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের চরতিস্তাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা লুৎফর রহমান। ভোররাতে চিৎকার চেঁচামেচি শুনে ঘুম ভেঙে যায় ইউপি সদস্য লুৎফর রহমানের। বাড়ির পাশে প্রতিবেশী মমতাজ আলীর বাড়ির চারপাশে র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও স্থানীয়দের শোরগোল। কাছে গিয়ে জানতে পারেন ওই বাড়ি থেকে তিন জনকে ধরেছে র‌্যাব। খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, তাদের একজন জামালপুরের বকশীগঞ্জের সাংবাদিক গোলাম রাব্বানি নাদিম হত্যার মূল আসামি ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবু। তবে অন্য দুজনের বিষয়ে জানতে পারেননি। কেউ কোনও কথাই বলছেন না। সবাই ভীতসন্ত্রস্ত। বাড়িটির চারপাশে তাদের সতর্ক সশস্ত্র পাহারা।


শনিবার ভোর ৪টা থেকে ৫টার দিকে মমতাজ আলীর বাড়ি ঘেরাও করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। একপর্যায়ে তারা বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করে ইউপি চেয়ারম্যান বাবুসহ তার দুই সহযোগীকে আটক করেন।


দেবীগঞ্জ উপজেলার চিলাহাটি ইউপি চেয়ারম্যান হারুন উর রশিদ ও সদস্য লুৎফর রহমান জানান, নীলফামারী র‌্যাব-১৩-এর সহযোগিতায় ঢাকা থেকে র‌্যাবের ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের সদস্যরা এই অভিযান পরিচালনা করেন। ওই চেয়ারম্যান বাবুর দূর সম্পর্কের চাচা হন স্থানীয় মমতাজ আলী। তার বাড়ি থেকেই বাবুকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে আসা আরও দুই ব্যক্তিকেও আটক করে র‌্যাব।


উল্লেখ্য, বুধবার (১৪ জুন) রাত ১০টার দিকে বাড়ি ফেরার পথে বকশীগঞ্জের পাটহাটি মোড়ে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন সাংবাদিক গোলাম রব্বানি। এ সময় তাকে মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তিনি অচেতন হয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা তাকে ফেলে পালিয়ে যায়। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার দুপুরে তার মৃত্যু হয়।


এদিকে, সাংবাদিক গোলাম রব্বানি নাদিম হত্যায় চেয়ারম্যান মাহমুদুল আলম বাবুর ছেলে ফাহিম ফয়সাল রিফাতকে বকশীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। 


শনিবার (১৭ জুন) দুপুরে জামালপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খাবিরুল ইসলাম বাবু ও সাধারণ সম্পাদক নাফিউল করিম রাব্বী স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ তথ্য জানানো হয়। তিনি বকশীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ছিলেন। 


শেয়ার করুন

সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন

Post a Comment

0Comments

খবর/তথ্যের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, সেবা হট নিউজ এর দায়ভার কখনই নেবে না।

Post a Comment (0)

#buttons=(Ok, Go it!) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Know about Cookies
Ok, Go it!
To Top