বাঁশখালীতে ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রমি উদ্যোগ, দুই দোকান লকডাউন

বাঁশখালীতে ইউপি চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রমি উদ্যোগ, দুই দোকান লকডাউন
দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতির অভিযোগে দোকান লকডাউন করে দিচ্ছে ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরী

শিব্বির আহমদ রানা, বাঁশখালী সংবাদদাতা, চট্টগ্রাম: নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রামন কে পুঁজি করে যেন নিত‍্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম অসাধু ব্যবসায়ীরা সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে নিয়ে যেতে না পারে এ জন্যে বাঁশখালী উপজেলার চাম্বল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুজিবুল হক চৌধুরী পূর্ব থেকে সতর্কতামূলক ঘোষণা দেন।

অসাধু ব্যবসায়ীদের সতর্ক করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইসবুকে জনস্বার্থে তিনি তিনি বলেন- 'করোনা ভাইরাসের দোহাই দিয়ে যদি অামার এলাকায় (চাম্বল ইউনিয়নস্থ বাজার) কোন দোকানে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়তি নেয় তাহলে সাথে সাথে কোন্ দোকান, কোন্ সাওদাগর জানাবেন আমি তার বিরোদ্ধে সাথে সাথে ব্যবস্থা নিবো।'

রবিবার (২২ মার্চ) সন্ধ্যায় সাধারণ ক্রেতাদের অভিযোগ পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক অভিযান পরিচালনা করে অনিয়মের কারণে চাম্বল বাজারের ২টি মুদির দোকানকে অর্নিদ্দিষ্টকালের জন্য লকডাউন করে দেয়।

এ বিষয়ে তিনি জানান, সাধারণ ক্রেতাদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে আমি চাম্বল বাজারে অভিযান পরিচালনা করি। চাম্বল বাজারের তাহের স্টোর ও আমিন স্টোর-এ ৫০ টাকা কেজী পেঁয়াজের দাম ৬৫ টাকা ও নরমাল মোটা চালের বস্তাপ্রতি সাড়ে ১২শ টাকার পরিবর্তে ১৬শত টাকা করে নেওয়ার অপরাধে দুই দোকানকে অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিই।' তিনি আরো বলেন- 'বাজার কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পণ্যের দাম বাড়াবেনা বলে যদি মুছলেখা দেয় তবে দোকান দু'টি খুলে দেওয়া হবে, অন্যতায় বন্ধ থাকবে।'

চাম্বল বাজারের পাইকারি দোকানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে বেশ কয়েকটি দোকানে চালের বিক্রয়মূল‍্য স্বভাবিক পরীলক্ষিত হয়। দোকানদারের কথার সাথে ক্রেতার বক্তব্য  মিলিয়ে কোন গরমিল পরীলক্ষিত হয়নি। তাদেরকে ধন্যবাদ জানানো হয় এবং পরবর্তীতে যেন তারা অসাধুভাবে মূল‍্যবৃদ্ধি না করে, করলে তার ভবিষ্যৎ পরিণতি সম্পর্কে সচেতন করা হয়। ক্রেতা সাধারণকে তাদের অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার পাশাপাশি দোকান হতে ক্রয়ের রশিদ গ্রহণ করার ব‍্যপারে সচেতন করা হয় বলেও জানান তিনি।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পেইজবুকের এক্টিভিটিস্ট ও সাধারণ জনগণ চেয়ারম্যানের ব্যতিক্রধর্মী উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তারা মনে করেন, চাম্বল ইউপি চেয়ারম্যানের মতো উপজেলার অন্যন্য চেয়ারম্যানও উপজেলা প্রশাসনের পাশাপাশি এমন উদ্যোগ গ্রহণ করলে কালোবাজারী ও অসাধু মুনাফালোভী ব্যবসায়ীদের দৌরাত্ম্য বন্ধ হয়ে যাবে।



 -সেবা হট নিউজ: সত্য প্রকাশে আপোষহীন


,